Thursday, May 10, 2018

মেটেরিয়া মেডিকায় একোনাইটের লক্ষণ:

মেটেরিয়া মেডিকায় একোনাইটের লক্ষণ: প্রচলিত মেটেরিয়া মেডিকার কোন কোনটিতে অল্প কয়েকটি লক্ষণ থাকে, আবার কোন কোনটিতে বিস্তৃত আকারে অজস্র লক্ষণ থাকে। এর কারণ কি? ব্যক্তিগত পর্যবেক্ষণ থেকে যা মনে হয়েছে সেটা হচ্ছে- প্রথমত: ঔষধগুলি প্রুভিংয়ের সময় সব লক্ষণ সবার কাছে সমানভাবে ধরা পড়েনি। যে লক্ষণগুলি অধিকাংশ প্রুভারের কাছে ধরা পড়েছে সেগুলোর মান সবচেয়ে বেশি। সেটা প্রথম গ্রেডের লক্ষণ। কেন্টের রেপার্টরিতে তার মান ৩। তার চেয়ে কম সংখ্যক প্রুভারের কাছে যে লক্ষণগুলি ধরা পড়েছে সেগুলো পরবর্তি গ্রেডের (দ্বিতীয় গ্রেডের)লক্ষণ। কেন্টের রেপার্টরিতে তার মান ২।আর যে লক্ষণগুলি মাত্র ২/১ জন প্রুভারের কাছে ধরা পড়েছে সেগুলোর মান সবচেয়ে কম। সেটা তৃতীয় গ্রেডের লক্ষণ। কেন্টের রেপার্টরিতে তার মান ১। এখন মেটেরিয়া মেডিকায় সবগুলি গেডের লক্ষণ স্থান পেলে মেটেরিয়া মেডিকার আকার বড় হতে বাধ্য। দ্বিতীয়ত: ঔষধগুলি প্রুভিংয়ের সময় একই লক্ষণ একাধিক ঔষধের মধ্যে ধরা পড়েছে। যেমনঃ তলপেটে বেদনার লক্ষণটি ধরা পড়েছে ৪০২ টি ঔষধের মধ্যে। এগুলোকে আমরা সাধারণ লক্ষণ বলতে পারি। আবার কিছু কিছু লক্ষণ আছে যা কেবল একটি বা অল্প কয়েকটি (২-১০ টি) ঔষধের মধ্যে পাওয়া গেছে। এই লক্ষণগুলির মাধ্যমে আমরা বিশেষ ঔষধটির পরিচয় পাই। এটাকে পরিচায়ক লক্ষণ বলে। এখন মেটেরিয়া মেডিকায় কেবল পরিচায়ক লক্ষণ স্থান পেলে মেটেরিয়া মেডিকার আকার ছোট হতে বাধ্য, আবার সাধারণ ও পরিচায়ক সকল লক্ষণ স্থান পেলে মেডিকার আকার বড় হতে বাধ্য। এখন আসি একোনাইটের লক্ষণ বিষয়ে। হোমিও বাংলা সফটওয়ার বিশ্লেষণ করে একোনাইটের প্রায় ৫০০০ (পাঁচ হাজার) লক্ষণ পাওয়া গেছে। এর মধ্যে আছে সকল গ্রেডের সব ধরণের লক্ষণ। শুধু একোনাইট নিয়ে একটা বই লেখা সম্ভব। পাঠকের মনে রাখার সুবিধার্থে এখানে শুধু একোনাইটের প্রথম ও দ্বিতীয় গ্রেডের পরিচায়ক লক্ষণগুলি তুলে ধরা হল এবং সবশেষে হোমিও বাংলা সফটওয়ারের ইংরেজি ভার্সান থেকে একোনাইটের মনের লক্ষণগুলি নমুনা হিসেবে তুলে ধরা হলো। বলে রাখা প্রয়োজন যে, প্রতিটি লক্ষণের শেষে যে সংখ্যা আছে তা ঔষধের সংখ্যা নির্দেশক অর্থাৎ তত সংখ্যক ঔষধের মধ্যে এই লক্ষণটি আছে। মন, দায়িত্ব গ্রহণ করে, অনেক কিছু গ্রহণ করে, কোনটার জন্য চেষ্টা করে না :৪: মন, স্মৃতিশক্তি, দূর্বলতা, আবেগ হতে :৪: মন, আনন্দ, অত্যধিক অসুস্থতার ফলে :৮: মন, অসি'রতা, অতি রজঃস্রাবকালীন :৫: মন, অভিমানী/স্পর্শকাতর, শিশুরা :১১: মন, উৎকন্ঠা, বেদনা হতে :৫: মন, উৎকন্ঠা, অস্থিরতাসহ :৫: মন, উৎকন্ঠা, মাথাব্যথাসহ :৮: মন, উৎকন্ঠা, জনসমাগমে :৭: মন, ভয় পেয়ে, রোগ চাপা পড়ে :১১: মন, ভয়, ভূতের, রাতে :৮: মন, ভয়, মৃত্যুভয়, প্রসবকালীন :৩: মন, ভয়, মৃত্যুভয়, মৃত্যূর সময় বলে দেয় :২: মন, ভয়, মৃত্যুভয়, গর্ভাবস্থা কালীন :১: মন, ভয়, মাসিক/ঋতুস্রাবের পূর্বে :১০: মন, ভয়, হাঁটার, কর্মব্যসত্ম রাসত্মায় :১: মন, ভবিষ্যদ্বানী করা, মৃত্যুর সময় বলে দেয় :২: মন, মৃত্যু, মৃত্যুর পূর্বানুভূতি, মৃত্যুর সময় নির্দিষ্ট করে দেয় :২: মন, মানসিক ধারণা, স্থিতিহীন/পরিবর্তনশীল :১১: মন, মুখমন্ডল এর উত্তাপ এ বৃদ্ধি :৬: মন, কক্ষে থাকলে, উষ্ণ কড়্গে, বৃদ্ধি :২: মন, গান করে/গান গায়, পর্যায়ক্রমে ক্রন্দনসহ :৪: মন, বিভ্রান্তি/ মনের বিশৃংখলা, বেদনার আক্রমণকালে :৫: মন, শিশুদের দাঁত ওঠা কালীন, বৃদ্ধি :৯: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, মস্তক পাশে, সকল পাশ হতে :২: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, মস্তকশীর্ষে, পূর্বাহ্নে :৩: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, মস্তকশীর্ষে, রাতে :৫: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, মস্তিষ্কে যেন বাঁধা আছে, ঝিল্লীগুলি খুব কষে আছে :৫: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, কপালে, চোখের উপরে, বিকালে :২: মাথা, বেদনা, চেপে ধরার মত, কপালে, ঘরের মধ্যে :৩: মাথা, বেদনা, মস্তকশীর্ষে, ঠান্ডা বাহ্য প্রয়োগে হ্রাস :২: মাথা, বেদনা, মাথার পিছনের অংশে, সূর্যের উত্তাপে :১০: মাথা, বেদনা, কপালে, চোখের উপরে, ঠান্ডা শুষ্ক বাতাসে :১: মাথা, বেদনা, চুল টেনে ধরার অনুভূতি, মস্তকশীর্ষ হতে :৭: মাথা, বেদনা, বিভ্রান্তি/ মনের বিশৃংখলা, যেন জ্ঞান হারাবে বা পাগল হয়ে যাবে :৬: মাথা, বেদনা, বিহবলকর, হতবুদ্ধিকর, কপালে, নাকের উপর :৫: মাথা, বেদনা, খিল ধরার মত, অবরুদ্ধ সর্দি হতে :১: মাথা, বেদনা, খিল ধরার মত, কপালে, যেন জ্ঞান/বোধশক্তি হারাবে :২: মাথা, বেদনা, তীর ফোটানোর মত, কপালে, বাম চোখের উপর :৮: মাথা, ভারবোধ, কপালে, যেন একটা বোঝা সামনের দিকে ঠেলে দিচ্ছে, মাথা খাড়া করে রাখতে বাধ্য হয় :২: মাথা, মাথার সঞ্চালন (ঝাকানো, হেলানো, ঢেউ খেলানো প্রভৃতি), মাথা চালে :৬: মাথা, রক্তোচ্ছাস, রোদের মধ্যে থাকার জন্য :৬: মাথা, গরম/উত্তাপ, গরম লোহা রয়েছে যেন চারদিকে :১: মাথা, সুড়সুড় করার অনুভূতি, গরম/উত্তাপে হ্রাস :১: মাথা, ঘাম, কপালে, শীতাবস্থাকালীন :৮: শিরঃঘূর্ণন, ভয় পাওয়ার পরে :৩: শিরঃঘূর্ণন, হাঁটলে হ্রাস :৯: শিরঃঘূর্ণন, ডানদিকে পড়ে যাওয়ার মত :২১: কান, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, লালচে/আরক্তিম, কানের ছিদ্রে :৫: মুখমন্ডল, বেদনা, টেনে ধরার মত, বিস্তৃত হয় কান পর্যন্ত :৩: মুখমন্ডল, বেদনা, বায়ুপ্রবাহে, শুষ্ক ঠান্ডা বায়ুপ্রবাহে :৬: মুখমন্ডল, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, বিস্তৃত হয় কানে :৫: মুখমন্ডল, অসাড়তা, ঠোটে :১১: মুখমন্ডল, প্রদাহ, ঠোটে :৭: মুখমন্ডল, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, লাল, দন্তশূল/দাঁতে বেদনাসহ :১১: মুখমন্ডল, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, লাল, এক পার্শ্বিক, এক পাশে ফ্যাকাশে, অপর পাশে লাল :১২: মুখমন্ডল, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, লাল, শুয়ে থাকলে, উঠলে ফ্যাকাসে হয়ে যায় :৪: মুখমন্ডল, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, হলুদবর্ণ, প্রচন্ড ক্রোধ/ক্ষিপ্তাবস্থাকালীন :৯: মুখমন্ডল, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, বিবর্ণ/ফ্যাকাসে, উপরের দিকে উঠলে :৪: মুখমন্ডল, গরম/উত্তাপ, উন্মত্তবৎ ক্রোধ/ক্ষিপ্তাবস্থাসহ :৯: মুখমন্ডল, ঘাম, যে পাশে চেপে শোয় :৩: গলা, বেদনা, জ্বালাকর, বিস্তৃত হয়, অন্ননালীতে :৬: গলা, এনেসথেসিয়া (অনুভূতিহীনতা/অসাড়তা) :৯: উদর, স্পর্শকাতর (স্পর্শ করলে), যন্ত্রণাদায়ক :৬: উদর, বেদনা, অবিরাম অসস্তিকর ব্যথা/বেদনা, প্রচ্ছন্ন বেদনা, উপরের দিকে :৯: উদর, বেদনা, বিসত্মৃত হয়, বুক পর্যন্ত, মলত্যাগকালীন :১: মলনালী, ডায়রিয়া/উদরাময়, পানিতে ভিজার পরে :৪: মলনালী, ডায়রিয়া/উদরাময়, ঠান্ডা বাতাসে :৩: মলনালী, ডায়রিয়া/উদরাময়, ঠান্ডা বাতাস গায়ে লাগানোর পরে :২: মল, ড়্গুদ্র ড়্গুদ্র টুকরায় বিভক্ত, স্পিনাস সবজির ন্যায় :৫: মূত্রথলী, মূত্রবেগ (রোগজ মূত্রেচ্ছা), উৎকন্ঠাকর :১১: মূত্রথলী, মূত্রবেগ (রোগজ মূত্রেচ্ছা), উৎকন্ঠাকর, প্রসাবের শুরুতে :১: মূত্রথলী, মূত্রবেগ (রোগজ মূত্রেচ্ছা), যন্ত্রণাদায়ক, মূত্রত্যাগ না হলে শিশু জননাঙ্গ মুঠো করে ধরে এবং কাঁদতে থাকে :২: মূত্রথলী, মূত্রবেগ (রোগজ মূত্রেচ্ছা), নিষ্ফল, শিশুদিগের :৫: মূত্রথলী, মূত্রাবরোধ, নবজাত/সদ্যজাত শিশুর :১২: মূত্রথলী, মূত্রাবরোধ, ঠান্ডা লাগার ফলে :৬: মূত্রথলী, মূত্রাবরোধ, শিশুদের ক্ষেত্রে, প্রত্যেকবার শিশুর সর্দি লাগলেই :৫: মূত্রথলী, মুত্রত্যাগ, স্ট্রাঙ্গুরী (মূত্রথলী ও মূত্রনালীর আড়্গেপজনিত ধীরে ও যন্ত্রণাদায়ক মূত্রত্যাগ), ভয়, ভয় পাওয়া, প্রভৃতিতে বৃদ্ধি :৫: মূত্রথলী, মুত্রত্যাগ, স্ট্রাঙ্গুরী (মূত্রথলী ও মূত্রনালীর আড়্গেপজনিত ধীরে ও যন্ত্রণাদায়ক মূত্রত্যাগ), ঠান্ডা লাগার ফলে :৬: মূত্রথলী, মুত্রত্যাগ, অসাড়ে/অনৈচ্ছিক মূত্রত্যাগ, পিপাসা এবং ভয়সহ :১: মূত্রথলী, টানবোধ :৫: মূত্রনালী, আক্ষেপ :৯: প্রস্রাব, বর্ণ, লাল, এবং সচ্ছ :২: স্ত্রীজননাঙ্গ, বেদনা, জরায়ুতে, মাসিক/ঋতুস্রাব কালীন, এতে তাকে চিৎকার করতে বাধ্য করে :১০: স্ত্রীজননাঙ্গ, বেদনা, জরায়ুতে, দ্বিভাজ হলে হ্রাস :৫: স্ত্রীজননাঙ্গ, বেদনা, তীক্ষ্ণ, জরায়ুতে :৪: স্ত্রীজননাঙ্গ, লোকিয়া/প্রসবান্তিক স্রাব, চাপা পড়া, ঠান্ডা হতে :৭: স্ত্রীজননাঙ্গ, প্রদাহ, ওভারি/ডিম্বাশয়ে, মাসিক ঋতুস্রাব সহসা বন্ধ হয়ে যায় :২: স্ত্রীজননাঙ্গ, মাসিক/ঋতুস্রাব, চাপা পড়া হয়/চাপা পড়ে, মেদবহুল স্ত্রীগণের :১১: স্ত্রীজননাঙ্গ, মাসিক/ঋতুস্রাব, চাপা পড়া হয়/চাপা পড়ে, পায়ে পানি লাগালে :৭: স্ত্রীজননাঙ্গ, মাসিক/ঋতুস্রাব, চাপা পড়া হয়/চাপা পড়ে, ভয় পাওয়া হেতু :৯: স্ত্রীজননাঙ্গ, মাসিক/ঋতুস্রাব, চাপা পড়া হয়/চাপা পড়ে, ঠান্ডা পানিতে গোসলে :১: স্ত্রীজননাঙ্গ, গর্ভপাত/গর্ভস্রাব, ভয় পাওয়া হেতু :৪: শীতাবস্থা, শীত শীত ভাব, সন্ধ্যায়, মাথাব্যথাসহ :২: শীতাবস্থা, ঝাকুনী দেয়ার মত কাঁপে, রাতে, শুয়ে পড়লে :১: শীতাবস্থা, ভিতরের দিকে, শীতলতা, রক্তবহা নালীসমূহে :৭: চর্ম, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, পোকার কামড়ের মত দাগ :৩: চর্ম, বর্ণবিকৃতি/বিবর্ণ, হলুদবর্ণ, সদ্যজাত শিশুদের :৫: চর্ম, চর্ম উদ্ভেদ, র্যা শ/লাল ফুস্কুড়ী, আগুনের মত লাল :৪: সাধারণ লক্ষণ, বেদনা, অসহ্য :৬: সাধারণ লক্ষণ, অস্থিতে, বেদনা, ছিড়ে ফেলার মত, অস্থিবেষ্টে :৫: সাধারণ লক্ষণ, বসে থাকার প্রবৃত্তিজনিত অসুস্থতা হতে :১৪: সাধারণ লক্ষণ, মূর্ছাকল্পতা/নিস্তেজপ্রবণ, সোজা হয়ে উঠে বসলে :১২: সাধারণ লক্ষণ, মূর্ছাকল্পতা/নিস্তেজপ্রবণ, প্রসাব করার পরে :৩: সাধারণ লক্ষণ, মূর্ছাকল্পতা/নিস্তেজপ্রবণ, ভয় পাওয়ার পরে :৬: সাধারণ লক্ষণ, মূর্ছাকল্পতা/নিস্তেজপ্রবণ, জ্বরকালীন :৮: সাধারণ লক্ষণ, খাদ্যে, ঠান্ডা পানিতে, অতি উত্তপ্ত হওয়ার সময় :৫: সাধারণ লক্ষণ, ঠান্ডা, রক্তবহা নালীসমূহে ঠান্ডা অনুভব :৭: সাধারণ লক্ষণ, ভিজে গেলে, ঘামকালীন :৭: চোখ, বেদনা, বাতাসে, ঠান্ডা বাতাসে বৃদ্ধি :৮: চোখ, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, সঞ্চালনে বৃদ্ধি :১০: চোখ, বেদনা, ছিড়ে ফেলার মত, রাতে, চোখের চারপাশে বেশি :২: চোখ, বেদনা, ড়্গতবৎ, চোখের পাতায়, কিনারায় :৮: চোখ, আলোক আতঙ্ক/ আলোকভীতি, প্রচন্ড ক্রোধ/ক্ষিপ্তাবস্থাকালীন :৯: চোখ, অত্যানুভূতি/স্পর্শকাতর, ঠান্ডা বাতাসে, চোখের পাতা :১: চোখ, প্রদাহ, বাইরের কোন পদার্থ প্রবেশের জন্য :৬: চোখ, প্রদাহ, শুষ্ক ঠান্ডা বায়ুপ্রবাহে :১: চোখ, প্রদাহ, তরুণ, আঘাত পাওয়ার পরে :২: চোখ, লালচে/আরক্তিম, আঘাত পাওয়ার পরে :৫: নাক, বেদনা, খিল ধরা, নাসামূলে :১০: নাক, নাক দিয়ে রক্তস্রাব, মাথাব্যথাকালীন :১৩: নাক, নাক দিয়ে রক্তস্রাব, মোটা সোটা রোগীর :২: নাক, স্রাব, অধিক পরিমাণ/প্রচুর, মাথায় পূর্ণতাবোধসহ :৭: নাক, সর্দি (কোরাইজা-সাধারণ সর্দি), ক্রুপ কাশির সাথে :৬: নাক, সর্দি (কোরাইজা-সাধারণ সর্দি), ঝড়ো বাতাসে, শুষ্ক, ঠান্ডা বায়প্রবাহে :২: নাক, ঘ্রাণশক্তি, তীড়্গ্ন, তীব্র গন্ধ পায়, অপ্রীতিকর গন্ধ :৫: দাঁত, বেদনা, নার্ভাস/স্নায়বিক দূর্বল রোগীর :৯: দাঁত, বেদনা, উত্তেজনায় বৃদ্ধি :৬: দাঁত, বেদনা, ঝড়ো বাতাসে, শুষ্ক ঠান্ডা বাতাসে :২: দাঁত, বেদনা, ঝড়ো বাতাসে, স্যাতসেতে ও ঠান্ডা বাতাসে :৭: দাঁত, বেদনা, ছিড়ে ফেলার মত, শয্যায় থাকলে :৩: দাঁত, বেদনা, ছিড়ে ফেলার মত, শয্যায় যাওয়ার পরে, বৃদ্ধি :১: দাঁত, বেদনা, ডান থেকে বামে :২: মুখগহবর, অসাড়তা, মাড়িতে :৩: মুখগহবর, শীতলতা, এরূপ অনুভব জিহবায়, ঠান্ডা বাতাসের অনুভূতি :১: মুখগহবর, স্বাদ, তিক্ত, সবকিছুতে, পানি ছাড়া :২: মুখগহবর, স্ফীতি/ফোলা, জিহবায়, কীট দংশনের পরে :৭: পাকস্থলী, বেদনা, জ্বালাকর, ভয় পাওয়ার পরে :১: পাকস্থলী, বেদনা, জ্বালাকর, বিসত্মৃত হয়, মুখগহবরে :৫: পাকস্থলী, প্রদাহ, ঠান্ডা দ্রব্য আহারের পরে, অতিরিক্ত উত্তপ্ত অবস'ায় :২: পাকস্থলী, পাথর থাকার অনুভূতি, ঠান্ডা, বমনের পর :১: পাকস্থলী, উদগার/ঢেকুর, মিষ্ট, তরল :৪: পাকস্থলী, বমি, উঠলে :৮: পাকস্থলী, বমি, শয্যায় উঠে বসলে :৪: পাকস্থলী, হিক্কা ওঠে, যন্ত্রণাদায়ক :১০: পিঠ, বেদনা, গ্রীবাদেশে, বিস্তৃত হয়, কাঁধে, ডান কাঁধে :৩: পিঠ, বেদনা, চালা/গর্ত করার মত, পৃষ্ঠদেশে :৭: পিঠ, অসাড়তা, কটিদেশে, অনুভূতির অভাব, বিস্তৃত হয় নিম্নাঙ্গতে :১: বুক, বেদনা, কেটে ফেলার মত (হঠাৎ তীব্র বেদনা), শীতাবস্থার পরে :১: বুক, বেদনা, শুয়ে থাকলে, কেবল চিৎ হয়ে শুতে পারে :৩: বুক, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, উভয় ডানপাশে, শুয়ে থাকলে, ডান পাশে শোয়ার সময় :৩: বুক, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, শুয়ে থাকলে, কেবল চিৎ হয়ে শুয়ে থাকতে পারে :৪: বুক, বেদনা, ছাল ওঠা ড়্গতের মত (শ্বাসনালী এবং বায়নালীসমেত), শ্বাসগ্রহণে :২: বুক, বেদনা, ছাল ওঠা ড়্গতের মত (শ্বাসনালী এবং বায়নালীসমেত), তাপমাত্রা পরিবর্তনের পরে :১: বুক, প্রদাহ, ফুসফুসের (নিউমোনিয়া), বামপাশে, উপর লোবের :১: বুক, পানি, যেন ফুটনত্ম পানি বুকের মধ্যে পড়ছে :১: বুক, পানি, গরম পানির অনুভূতি ভিতরে :৩: বুক, পানির অনুভূতি :৪: বুক, চাপবোধ, সঞ্চালনে, দ্রুত সঞ্চালনে :৩: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, হৃদপিন্ডে, শ্বাসগ্রহণে, গভীর শ্বাসগ্রহণে বৃদ্ধি :৯: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, ধমনী/নাড়ীর স্পন্দন, দ্রুত, টেকিকার্ডিয়া, হৃদস্পন্দনের চেয়ে দ্রুত :৪: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, প্রদাহ, হৃদপিন্ডের, মাথা উচু করে চিৎ হয়ে শুয়ে থাকতে বাধ্য হয় :১: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, বুক ধড়পড় করে, আকস্মিক প্রচন্ড আক্রমণ :৮: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, বুক ধড়পড় করে, শীতাবস্থাপ্রাপ্ত হওয়াকালীন :১: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, বুক ধড়পড় করে, দিনের বেলায় :৩: হৃদপিন্ড ও রক্ত সঞ্চালন, হৃদপিন্ডের বিবৃদ্ধি, বামপাশের বাহু ও আঙুলে অসাড়তা এবং ঝিনঝিন করেসহ :২: জ্বর, পার্শ্বে, এক গাল লাল ও উষ্ণ, অপর গাল বিবর্ণ ও ঠান্ডা :১: জ্বর, সল্প বিরাম, এক গাল লাল, অপর গাল বিবর্ণ :২: জ্বর, সল্প বিরাম, শিশুদিগের :১১: জ্বর, সন্ধ্যায়, শয্যায়, শয়ন করার পরে :৯: জ্বর, জ্বালাকর উত্তাপ, শুষ্ক, জ্বালাকর উত্তাপ, বিসত্মৃত হয় মাথা এবং মুখমন্ডল হতে এবং তার সাথে ঠান্ডা পানীয়ের তৃষ্ণা :১: জ্বর, জ্বালাকর উত্তাপ, পিপাসা :৭: জ্বর, জ্বালাকর উত্তাপ, পিপাসা ঠান্ডা পানীয়ের জন্য সহ :২: ঘাম, দেহের আবৃত অংশে :১২: ঘাম, প্রচুর, দূর্বলকর, ডায়রিয়া/উদরাময়সহ এবং অধিক পরিমাণ/প্রচুর প্রস্রাব :১: ঘাম, প্রচুর, প্রস্রাব, অধিক পরিমাণ/প্রচুর প্রসাব এবং ডায়রিয়া/উদরাময় :১: ঘাম, একটিমাত্র অঙ্গে, যে পাশে চেপে শোয় :৮: ঘাম, ডায়রিয়া/উদরাময়সহ :৪: হাত-পায়ে, দৃঢ়তার অভাব, হাঁটুতে :১১: হাত-পায়ে, পোকা হাঁটার মত অনুভব, হাতের আঙুলে, লেখার সময় :১: হাত-পায়ে, বেদনা, টেনে ধরার মত, কটিনিম্নে, বামপাশে :৫: হাত-পায়ে, বেদনা, টেনে ধরার মত, কটিনিম্নে, সঞ্চালনে বৃদ্ধি :৩: হাত-পায়ে, বেদনা, ইনফ্লুয়েঞ্জা (ভাইরাস সংক্রমণের জন্য ব্যথাসহ সর্দি, জ্বর)কালীন :৮: হাত-পায়ে, বেদনা, কটিনিম্নে, খোলা বাতাসে হাঁটলে হ্রাস :২: হাত-পায়ে, বেদনা, কটিনিম্নে, বাতজনিত, বামপাশে :৬: হাত-পায়ে, বেদনা, সূচ ফোটানোর মত, পায়ের আঙুলে, গরম :১: হাত-পায়ে, বেদনা, ছিড়ে ফেলার মত, কটিনিম্নে, বাতজনিত :৫: হাত-পায়ে, বেদনা, তীর ফোটানোর মত, অগ্রবাহুতে :৯: হাত-পায়ে, বেদনা, তীর ফোটানোর মত, হাতের আঙুলে, জোড়/সন্ধিসমূহতে :৪: হাত-পায়ে, অসাড়তা, অগ্রবাহুতে, বামপাশে :৭: হাত-পায়ে, অসাড়তা, পায়ে, গেটেবাত রোগে :১: হাত-পায়ে, অসাড়তা, পায়ে, বসার পরে :৩: হাত-পায়ে, অসাড়তা, পায়ের আঙুলে, হাঁটলে :৪: হাত-পায়ে, অসাড়তা, উর্ধাঙ্গতে, বামপাশে, হৃদরোগে :১৩: হাত-পায়ে, অসাড়তা, নিম্নাঙ্গতে, গেটেবাতযুক্ত অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে :১: হাত-পায়ে, পড়্গাঘাত, উর্ধাঙ্গতে, মসিত্মষ্কঝিলস্নী প্রদাহ/মেনিজাইটিসকালীন :১: হাত-পায়ে, ব্যান্ডেজ করার অনুভূতি যেন, উরম্নতে :৪: হাত-পায়ে, ব্যান্ডেজ করার অনুভূতি যেন, উরম্নতে, হাঁটার সময় :২: হাত-পায়ে, শীতলতা, দুই হাতে, হাতের তালুতে :৪: হাত-পায়ে, শীতলতা, গোড়ালীর গাটে :৭: হাত-পায়ে, শীতলতা, সঞ্চালনে হ্রাস :১: হাত-পায়ে, সঞ্চালন, দুই হাতে, সতঃস্ফূর্ত :৭: হাত-পায়ে, ঘাম, হাতে, হাতের তালুতে, ঠান্ডায় :১০: হাত-পায়ে, ঝিনঝিন করে, পায়ের পাতায়, বিস্তৃত উপরের দিকে :২: শ্বাসক্রিয়া, হাঁপানীর মত (এজমাটিক), আবেগ এর পরে :১০: শ্বাসক্রিয়া, হাঁপানীর মত (এজমাটিক), কারখানার শ্রমিকদের হাঁপানী :৭: শ্বাসক্রিয়া, হাঁপানীর মত (এজমাটিক), নিদ্রা আসার কালে :১১: শ্বাসক্রিয়া, হাঁপানীর মত (এজমাটিক), শিশুদের :১৫: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, ক্রুপ কাশি, ঠান্ডা শুষ্ক বাতাস লাগানোর পরে :৩: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, বেদনা, স্বরযন্ত্রে, বক্তব্য দিলে/কথা বললে :৩: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, বেদনা, স্বরযন্ত্রে, কাশিলে, সরযন্ত্র চেপে ধরে :৯: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, বেদনা, স্বরযন্ত্রে, গান গাইবার সময় :৩: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, বেদনা, ছাল ওঠা ড়্গতের মত, স্বরযন্ত্রে, শ্বাসগ্রহণকালীন :৭: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, বেদনা, ছাল ওঠা ড়্গতের মত, স্বরযন্ত্রে, ঠান্ডা বাতাসে :১০: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, চেপে ধরে সরযন্ত্র কাশির সময় :৮: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, উপদাহ, স্বরযন্ত্রে, রাতে, মাঝরাতের পূর্বে :২: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, কন্ঠস্বর, স্বরভঙ্গযুক্ত, দিনের বেলায় :৩: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, কন্ঠসর, ক্রুপ কাশির মত :৫: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, কন্ঠসর, মোরগের ডাকের মত :৬: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, কন্ঠসর, স্বরলোপ, ভয় পাওয়া হেতু :৩: স্বরযন্ত্র ও শ্বাসনালী, তরল পদার্থ সরযন্ত্রের মধ্যে প্রবেশ করে :৪: কাশি, ছোট/সংড়্গিপ্ত, স্বরযন্ত্রে সুড়সুড়ি (হতে) :১১: কাশি, বাতাসে (প্রবাহমান), পূর্ব বাতাসের মধ্যে :৭: কাশি, বাতাসে (প্রবাহমান), উত্তরে বাতাসের মধ্যে :৬: কাশি, বাতাসে (প্রবাহমান), ঠান্ডা বাতাসে :৭: কাশি, বাতাসে (প্রবাহমান), ঠান্ডা, শুষ্ক বাতাসে :৪: কাশি, বাতাসে, শুষ্ক, ঠান্ডা বাতাসে :১১: কাশি, ঐ সময়ে গলা চেপে ধরে :৮: কাশি, শুষ্ক, খোলা বাতাসে বৃদ্ধি :৭: কাশি, শুষ্ক, খোলা বাতাসে, উষ্ণ গৃহ হতে খোলা বাতাসে প্রবেশ করলে :২: কাশি, শুষ্ক, তাপমাত্রার পরিবর্তনে :১: কাশি, কুকুরের ডাকের মত, উচ্চ শব্দে :৬: কাশি, ঠান্ডায়, গরম হতে ঠান্ডায় আসলে :৮: কাশি, চিৎ হয়ে শুয়ে থাকলে হ্রাস :৪: ক্লিনিকাল, ইনফ্লুয়েঞ্জা (ভাইরাস সংক্রমণের জন্য ব্যথাসহ সর্দি, জ্বর) রোগের সূচনা, দ্রম্নত :৮: ক্লিনিকাল, নিস্পন্দ বায়ুরোগ, ভয় পাওয়ার পরে :৫: কেন্টের রেপার্টরিতে একোনাইটের Mind অধ্যায়ে ৫৩১ টি লক্ষণ পাওয়া গেছে। https://web.facebook.com/homeobanglasoft/posts/1827691607270775

Monday, March 26, 2018

18.02 Version of Homeo Bangla Software

হোমিওপ্যাথিক বাংলা সফটওয়ার

সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় লেখা এই সফটওয়ারটি হোমিওপ্যাথির ছাত্র ও চিকিত্সকদের জন্য অত্যন্ত মূল্যবান। যতদূর জানা যায়, বাংলা ভাষায় এমন সমৃদ্ধ সফটওয়ার ইতিপূর্বে তৈরী হয়নি। সফটওয়ারটি মূলত হোমিওপ্যাথির প্রতি প্রবল আকর্ষণ এবং ১৭ বছরের নিরলস গবেষণার ফসল। এই সফটওয়ারটি তৈরীর পূর্বে বিদেশী অনেক হোমিও সফটওয়ারের গঠণবৈশিষ্ট্য অনুসরণ করতে হয়েছে। সেসব সফটওয়ারের বিভিন্ন অতি প্রয়োজনীয় ফিচারের সাথে নিজস্ব দৃষ্টিভঙ্গি সমন্বয় করে এই হোমিওপ্যাথিক বাংলা সফটওয়ারটি তৈরী।

হোমিওপ্যাথিক বাংলা সফটওয়ারটির বৈশিষ্ট্য:

১. সবকিছুই বাংলায়

এই সফটওয়ারটি সম্পূর্ণ বাংলা ভাষায় লেখা। কোন জটিলতা ছাড়াই ইংরেজী না জানলেও এই সফটওয়ারটি অনায়াসে ব্যবহার করা যাবে। এর সকল কমান্ড বাংলায় লেখা। বাংলায় রোগের নাম বা লক্ষণ টাইপ করে সঙ্গে সঙ্গে যে কোন রেপার্টরী থেকে তার ঔষধ খুজে বের করা যাবে।

২. বাংলা ও ইংরেজী ভাষায় তিনটি রেপার্টরী

এই সফটওয়ারটির ডাটাবেজ হিসেবে ডাঃ বোরিকের রেপার্টরী, ডাঃ সুসলারের বায়োকেমিক রেপার্টরী ও ডাঃ কেন্টের বিখ্যাত রেপার্টরীর সর্বশেষ সংস্করণ ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া ক্লিনিকাল ফিচার সংযুক্ত করা হয়েছ। রেপার্টরীগুলো ইংরেজী ও বাংলা দুই ভাষায়ই ব্যবহার করা যাবে।

৩. তিনটি রেপার্টরীর সকল গ্রেডের সকল লক্ষণ ও ঔষধ

এই সফটওয়ারটিতে কেন্টের রেপার্টরীর সকল গ্রেডের সকল লক্ষণ (69,418 টি) ও সকল ঔষধ রাখা হয়েছে এবং ডাঃ বোরিক ও ডাঃ সুসলারের রেপার্টরীর সকল গ্রেডের সকল ঔষধ রাখা হয়েছে। প্রতিটি লক্ষণের বাম পাশে তার গ্রেড এবং শেষে লেখা আছে লক্ষনটি কতটি ঔষধের মধ্যে আছে। এ থেকে সহজেই লক্ষণটির গুরুত্ব সম্পর্কে ধারণা করা যাবে।
এই সফটওয়ারটিতে অদ্ভুত বা বিরল লক্ষণ (যে লক্ষণগুলি মাত্র ২/১ টি ঔষধে আছে তা) এবং সাধারণ লক্ষণ (যা প্রায় সকল ঔষধে আছে তা) দেখার অপূর্ব সুযোগ আছে।

৪. অর্গানন অব মেডিসিন

এই সফটওয়ারটিতে অর্গানন অব মেডিসিনের সকল অনুচ্ছেদ এবং হোমিও চিকিত্সার নানা নিয়মকানুন প্রবন্ধাকারে বাংলা ভাষায় লিখিত হয়েছে। এই পেজে অর্গাননের যে কোন সূত্র নং বা কোন শব্দ টাইপ করলে সংশ্লিষ্ট সম্পূর্ণ সূত্রটি দেখা যাবে।

৫. ঔষধের চরিত্রগত লক্ষণসহ ডাটাবেজ

এতে ডি.এইচ.এম.এস কোর্সের ৪ বছরের সকল ঔষধের ডাটাবেজ করা আছে। সার্চ বক্সে কোন লক্ষণ লেখার সাথে সাথে ঐ লক্ষণযুক্ত সকল ঔষধ চলে আসবে। আবার তা থেকে যে কোন ঔষধে ক্লিক করলে সেই ঔষধের চরিত্রগত ও আনুষঙ্গিক লক্ষণগুলি দেখা যাবে এবং ঔষধটি কোন কোন রোগে সচরাচর ব্যবহৃত হয় তা লক্ষণসহ দেখা যাবে।
এতে ডি.এইচ.এম.এস কোর্সের ৪ বছরের যে কোন ঔষধের সকল গুরুত্বপূর্ণ লক্ষণ, ক্রিয়াস্থল , অনুপূরক, সম্পূরক, ক্রিয়ানাশক, ক্রিয়াকাল, শক্তি প্রভৃতি এক নজরে দেখার সুযোগ আছে।

৬. ইন্টারনেট কালেকশন

এই সফটওয়ারটিতে ইন্টারনেট থেকে সংগৃহিত হোমিও চিকিত্সাবিষয়ক অনেক গুরুত্বপূর্ণ বিষয় (বিভিন্ন রোগের চিকিত্সা কৌশল, ইংরেজী মেটেরিয়া মেডিকা, রেপার্টরী, হোমিও নিয়মনীতি, অনলাইন চিকিত্সা প্রভৃতি) দেখার সুযোগ আছে।

৭. এনাটমি এন্ড ফিজিওলজি

এই সফটওয়ারটিতে মানব দেহের সকল অঙ্গের অভ্যন্তরীণ ছবি দেখার সুযোগ রয়েছে। প্রতিটি অঙ্গের নামে ক্লিক করে সেই অঙ্গের একাধিক রঙিন ছবি দেখা যাবে।

৮. মাদার টিংচার

এই সফটওয়ারটিতে অতি প্রয়োজনীয় ২৩০ টি মাদার টিংচার ও তার ব্যবহার সম্পর্কে তাত্ক্ষণিক জানার সুযোগ আছে। এখানে সার্স বক্সে যে কোন রোগ লক্ষণ লিখে ওকে করলে রোগটি কোন কোন মাদার টিংচার দিয়ে চিকিত্সা করা যাবে তা লক্ষণসহ জানা যাবে।

৯. বায়োকেমিক ও বায়োপ্লাজেন

এই সফটওয়ারটিতে ১২ টি বায়োকেমিক ও ২৮ টি বায়োপ্লাজেন মেডিসিনের যে কোন লক্ষণ সার্সের সুযোগ আছে। এখানে সার্স বক্সে যে কোন রোগ লক্ষণ লিখে ওকে করলে রোগটি কোন কোন বায়োকেমিক ও বায়োপ্লাজেন দিয়ে চিকিত্সা করা যাবে তা লক্ষণসহ জানা যাবে।

১০. রোগীলিপি তৈরীর ডিজিটাল ফর্ম

এই সফটওয়ারটিতে কেস টেকিং/ রোগীলিপি তৈরীর ডিজিটাল ফর্ম আছে যা থেকে অল্প সময়ে রোগীর সার্বিক লক্ষণ সংগ্রহ করে তা সংরক্ষণ করা যায়, ঔষধ নির্বাচন করা যায়, প্রেসক্রিপশন লেখা যায় এবং পরবর্তিতে রোগীটির তথ্য রোগীর নাম/আইডি/গ্রাম/মোবাইল নং অনুযায়ী সহজেই খুজে বের করা যায়। কাগজে ছাপানো কেস টেকিং ফর্মে লক্ষণ সংগ্রহ করে সে অনুয়ায়ী কম্পিউটারে কেবল টিক দিয়েই জটিল রোগের ঔষধ নির্বাচন করা যায়। এখানে রোগীর সার্বিক লক্ষণ থেকে ফিল্টারিংসহ কেস এনালাইসি করার এবং রিপোর্টসহ প্রেসক্রিপশন লিখে তা প্রিন্টের ব্যবস্থা আছে।

১১. লক্ষণসমষ্টি থেকে উপযুক্ত ঔষধ নির্বাচন

এই সফটওয়ারটির সবচেয়ে আকর্ষনীয় দিক হচ্ছে লক্ষণসমষ্টি থেকে উপযুক্ত ঔষধ নির্ণয় যা সকল হোমিওপ্যাথিক চিকিত্সকের জন্য কষ্টকর। এই সফটওয়ার ব্যবহার করে সহজেই (ঔষধের লক্ষণ মুখস্থ না থাকলেও) ক্রণিক রোগের লক্ষণসমষ্টি থেকে উপযুক্ত ঔষধ নির্ণয় করা যাবে। রোগীর সার্বিক লক্ষণ থেকে উপযুক্ত ঔষধ নির্বাচনের জন্য এখানে ৩টি রেপার্টরী ব্যবহার করা হয়েছে। যে কোন এক বা একাধিক রেপার্টরী একত্রে ব্যবহার করে উপযুক্ত ঔষধ নির্ণয় করা যাবে। সার্স বক্সে যে কোন রোগ/রুব্রিক লিখে সার্স করলে সংশ্লিষ্ট রেপার্টরী থেকে সে সম্পর্কিত সকল লক্ষণ দেখা যাবে এবং তা থেকে যে কোন লক্ষণে ডান ক্লিক (রাইট ক্লিক) করলে ঐ লক্ষণযুক্ত সকল ঔষধ গ্রেডসহ দেখা যাবে। এখান থেকে এক বা একাধিক লক্ষণ চুড়ান্ত ফলাফলের জন্য নির্বাচন করা যাবে।

১২. মায়াজম নির্বাচন

ক্রণিক রোগের চিকিত্সা করার জন্য মায়াজম নির্বাচন অত্যন্ত জরুরী। তাই সফটওয়ারটিতে মায়াজম নির্বাচনের সুব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

১৩. তাত্ক্ষণিক ঔষধ নির্বাচন

রেপার্টরী ব্যবহার করে একাধিক লক্ষণ থেকে ঔষধ নির্বাচন সময়সাপেক্ষ বলে সরাসরি রোগের নামে ঔষধ নির্বাচনের একটা সহজ ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। এই পেজে বাংলা বর্ণক্রম অনুযায়ী ৫৫০ টি রোগের নাম দেয়া আছে। সার্স বক্সে টাইপ করে বা তালিকা থেকে যে কোন রোগ নির্বাচন করলে তাত্ক্ষনিকভাবে রোগটির চিকিত্সাব্যবস্থা জানা যাবে। এটা রেপার্টরীর বাইরের অংশ যা নামী-দামী মেটেরিয়া মেডিকা ও প্রাকটিস অব মেডিসিন থেকে সতর্কভাবে সংগৃহিত।

১৪. যে কোন ঔষধের সকল লক্ষণকে একত্রে দেখা

সফটওয়ারটিতে যে কোন ঔষধের যে কোন অঙ্গের সকল লক্ষণকে গ্রেড অনুযায়ী একত্রে দেখার ব্যবস্থা আছে। যেমন: একোনাইটের সকল মানসিক লক্ষণ দেখা, নাক্সের মলের লক্ষণ দেখা ইত্যাদি।

১৫. বিভিন্ন পরিস্থিতিতে শক্তি ও মাত্রা

আমরা জানি রোগের অবস্থা, রোগীর অবস্থা ও ঔষধের ধরণ অনুযায়ী ঔষধের শক্তি ও মাত্রা ভিন্ন হতে পারে। তাই সফটওয়ারটিতে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে কোন কোন শক্তি কী মাত্রায় ব্যবহার করতে হবে তা দেখানো হয়েছে।

১৬. চিকিত্সকের তথ্যসহ প্রেসক্রিপশন তৈরী

সফটওয়ারটিতে চিকিত্সকের ডিগ্রীসহ নাম, চেম্বারের নাম, ঠিকানা, মোবাইল, ই-মেইল ব্যবহার করে প্রেসক্রিপশন তৈরী এবং তা বাংলা ও ইংরেজিতে প্রিন্টের ব্যবস্থা আছে।

১৭. স্টক ব্যবস্থাপনা

চিকিত্সকের স্টকে কত শক্তির কোন কোন ঔষধ মজুদ আছে, যে সব ঔষধ সব সময় ব্যবহৃত হয় তা স্টকে আছে কিনা, কোন শক্তির ঔষধ স্টকে নেই তা এই সফটওয়ার থেকে নিয়ন্ত্রণ করা যাবে।

১৮. রেপার্টরীর সকল অধ্যায়

এই সফটওয়ারটিতে বোরিকের বাংলা রেপার্টরীকে ২৫ ভাগে ভাগ করা হয়েছে এবং কেন্টের রেপার্টরীকে মন-মাথা-চোখ প্রভৃতি ৪২ টি অংশে বিভক্ত করা হয়েছে। এছাড়া বর্তমান বিশ্বের আলোড়ন সৃষ্টিকারী Clinical Repertory (by – Robin Murphy) এর অনুকরণে সকল লক্ষণকে ৭৪ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। যে কেউ সহজেই বিভিন্ন অংশ থেকে উপযুক্ত লক্ষণ বাছাই করে লক্ষণসমষ্টি তৈরী করে উপযুক্ত ঔষধ নির্ণয় করতে পারবেন। সাথে সাথে নির্বাচিত ঔষধের লক্ষণগুলি দেখার সুযোগ আছে এবং ফিল্টারিং এর ব্যবস্থা আছে যাতে বিবেচনাশক্তি প্রয়োগ করে নির্বাচনকে আরও নির্ভুল করা যায়।

১৯. ডা: প্রফুল্ল বিজয়করের থিওরী অব একিউট

সফটওয়ারটিতে ভারতের বিখ্যাত হোমিওপ্যাথ ডা: প্রফুল্ল বিজয়করের থিওরী অব একিউট যুক্ত করা হয়েছে। এটি ভালভাবে আয়ত্ব করতে পারলে যে কোন তরুন রোগ ২৪ ঘন্টায় আরোগ্য করা সম্ভব। এই সফটওয়ারে থিওরীটির ব্যাখ্যা ও ব্যবহারবিধি এবং ৩/৪ টি ক্লিক করে সঠিক ঔষধ নির্বাচনের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

২০. প্রাকটিস অব মেডিসিন

সফটওয়ারটিতে প্রাকটিস অব মেডিসিন নামক নতুন পেজ যুক্ত করা হয়েছে। এই পেজে ৫৫০ টি রোগ ২৭ ক্যাটাগরিতে ভাগ করা হয়েছে। যে কোন ভাগে ক্লিক করলে সেই জাতীয় রোগের তালিকা আসবে। তালিকা থেকে যে কোন রোগে ক্লিক করলে রোগটির পরিচিতি, লক্ষণ, পরিণাম, হোমিও চিকিত্সা, প্রতিরোধ, পথ্য ও আনুষঙ্গিক ব্যবস্থা আসবে।

২১. মেডিকেল ডিকশনারী

সফটওয়ারটিতে মেডিকেল ডিকশনারী নামক নতুন পেজ যুক্ত করা হয়েছে। এখানে শব্দ তালিকায় অতি প্রয়োজনীয় প্রায় সকল রোগ ও অঙ্গের নাম আছে। যে কোন শব্দ বাংলা বা ইংরেজীতে সার্স করা যাবে। শব্দটি নির্বাচিত হলে তার সংজ্ঞা, বিবরণ ও প্রয়োজনীয় চিত্র দেখা যাবে।

২২. বিখ্যাত চিকিত্সকদের চিকিত্সা বিষয়ক কলাকৌশল

ইন্টারনেট থেকে বিখ্যাত চিকিত্সকদের চিকিত্সা বিষয়ক কলাকৌশল সংগ্রহ করে সফটওয়ারটিতে সংযোজন করা হয়েছে।

২৩. সর্বশেষ ভার্সান সহজেই ডাউনলোড

সফটওয়ারটিতে ইন্টারনেট কানেকশন থাকা অবস্থায় এক ক্লিকেই সর্বশেষ ভার্সান সহজেই ডাউনলোড করার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

২৪. সকল রেজুলেশনে ফুল স্ক্রিন ভিউ

সফটওয়ারটি উইন্ডোজের সকল ভার্সানে (এক্সপি, উইন্ডোজ-৭, উইন্ডোজ-৮) যে কোন সিস্টেমে (ডেস্কটপ, ল্যাপটপ, নোটবুক) যে কোন রেজুলেশনেই পুরো পর্দা জুড়ে দেখা যাবে। রেপার্টরীতে অক্ষরের ফন্ট ছোট/বড় করার ব্যবস্থা আছে।

২৫. সফটওয়ার চালাতে ভিডিও টিউটোরিয়াল

সফটওয়ারটির সকল কার্যপ্রণালী সুষ্ঠুভাবে বোঝার জন্য পৃথক ভিডিও টিউটোরিয়ালের ব্যবস্থা রাখা হয়েছে।

২৬. সফটওয়ারের ১৮.০২ ভার্সানে ব্যাপক পরিবর্তন


  • কেন্টের রেপার্টরিতে ব্যাপক পরিবর্তন আনা হয়েছে। ১৮.০২ ভার্সানে কেন্টের রেপার্টরিতে প্রায় সত্তর হাজার (69,418) টি লক্ষণ স্থান পেয়েছে। লক্ষণগুলি প্রথম গ্রেড, দ্বিতীয় গ্রেড ও তৃতীয় গ্রেডে বিভক্ত; যাদের মান যথাক্রমে ৩, ২ এবং ১। এক কথায় কেন্টের রেপার্টরির সকল গ্রেডের সকল লক্ষণ ও সকল ঔষধ স্থান পেয়েছে।
  • সাধারণ লক্ষণ অধ্যায়টি আলাদাভাবে বিভিন্ন ভাগে বিন্যস্ত করা হয়েছে; এখান থেকে সহজেই সার্বদৈহিক লক্ষণ নির্বাচন করা যাবে।
  • কেন্টের বাংলা রেপার্টরি পেজে অবস্থান করে অন্যান্য নামক বাটন ব্যবহার সহজেই সার্বদৈহিক লক্ষণসহ ধাতুপ্রকৃতি, মায়াজমঘটিত ও কারণঘটিত লক্ষণ ও ঔষধ বের করা যাবে।
  • একটি নির্দিষ্ট রোগলক্ষণকে আবশ্যিকভাবে রেখে অন্যান্য আনুষঙ্গিক লক্ষণ নিয়ে সহজেই উক্ত রোগের ঔষধ নির্বাচন করা যাবে।
  • প্রাকটিস অব মেডিসিন এবং কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরির যৌথ সমন্বয়ে সহজ রেপার্টরিকরণ নামে একটি নতুন পেজ তৈরী করা হয়েছে। এই পেজ ব্যবহার করে একই সঙ্গে প্রাকটিস অব মেডিসিন থেকে যে কোন রোগের চিকিৎসা জানা যাবে এবং রেপার্টরিকরণে ক্লিক করে সেই রোগটি কেন্ট ও বোরিকের রেপা্র্টরিতে কোন কোন লক্ষণ নিয়ে আছে তা জানা যাবে ও সেই লক্ষণ নির্বাচন করা যাবে। এখন থেকে কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরি থেকে আলাদাভাবে লক্ষণ সার্স করার প্রয়োজন হবে না। যে কোন রোগের নাম একবার টাইপ করে তা একই সময়ে প্রাকটিস অব মেডিসিন এবং কেন্ট ও বোরিকের রেপার্টরি থেকে খুজে বের করা যাবে।

    সফটওয়ারটির প্রথম ভার্সান (১২.৭) প্রকাশের পর সারা দেশে হোমিও চিকিত্সকদের নিকট থেকে ব্যাপক সাড়া পাওয়া গেছে। তাঁদের পরামর্শ এবং চাহিদা অনুযায়ী প্রথম ভার্সানে ১২ পর্বে ব্যাপক পরিবর্তন করে বর্তমানে (ফেব্রুয়ারী-১৮) ১২তম ভার্সান (১৮.০২) প্রকাশ করা হয়েছে। সফটওয়ারটি প্রতিনিয়ত আপডেটের কাজ চলছে। সর্বশেষ আপটেড যে কোন সময় ফ্রি ডাউনলোড করা যায়।

    সফটওয়ারটির কপির জন্য আজই যোগাযোগ করুন।

  • প্রতি কপির মূল্য মাত্র ৫০০০/- টাকা যা একটি কম্পিউটারে ব্যবহার করা যাবে। একই সঙ্গে ২টি কম্পিউটারে ব্যবহারের জন্য খরচ হবে সর্বমোট ৭০০০/- টাকা।


  • ভারতে প্রতি কপির মূল্য ৪০০০ ভারতীয় রুপি। একই সঙ্গে ২টি কম্পিউটারে ব্যবহারের জন্য খরচ হবে সর্বমোট ৬০০০/- রুপি।ভারত থেকে সফটওয়ার পেতে হলে স্টেট ব্যাংকের একটি নির্দিষ্ট একাউন্টে টাকা পাঠাতে হবেঃ
    বিস্তারিত জানতে এই ঠিকানায় ই-মেইল করুন: mokhlesbd2009@gmail.com
    উক্ত একাউন্টে টাকা পাঠালে আপনাকেসফটওয়ার ডাউনলোড করার জন্য একটি লিঙ্ক দেয়া হবে। সেই লিঙ্কে ক্লিক করলে সরাসরিসফটওয়ারটি ডাউনলোড করতে পারবেন।ডাউনলোড হলে Homeo Bangla Software.msi নামে একটি ফাইল পাবেন। এর উপর ডবল ক্লিক করে সহজেই ইনস্টল করতে পারবেন। ইনস্টলের পর প্রথমবার সফটওয়ার ওপেন করার জন্য পাসওয়ার্ড চাইবে। আপনাকে ইমেইলে পাসওয়ার্ড দেয়া হবে।
  • সফটওয়ারটির সবগুলি ভিডিও দেখতে চাইলে নিচের লিঙ্কে ক্লিক করুন:
    http://mokhlesbd.com/index.php/vedio/
  • সফটওয়ারটির ব্যবহারবিধি এন্ড্রোয়েড মোবাইলে দেখার জন্য নিচের অ্যাপটি ফ্রি ডাউনলোড করেমোবাইলে ইনস্টল করুন:
    http://www.mokhlesbd.com/download/hbsmanual.apk
  • সফটওয়ারটির ব্যবহারবিধি কম্পিউটারে দেখার জন্য নিচের হেল্প ফাইলটি ফ্রি ডাউনলোড করেকম্পিউটারে ব্যবহার করুন:
    http://www.mokhlesbd.com/download/hbshelp.chm

  • যে কোন তথ্যের জন্য যোগাযোগ করুন:
    মোঃ মোখলেছুর রহমান
    মোবাইল নং: +৮৮ ০১৭১৭০০৫১৪০
    ইমেইল: mokhlesbd2009@gmail.com
  • নামাজ‌ের সুরা ও দোয়ার অডিও

    আলহামদুলিল্লাহ। আল্লাহর অশেষ রহমতে নতুন একটি এন্ড্রয়েড অ্যাপ তৈরীর কাজ শেষ হল। অ্যাপটির নাম দেয়া হয়েছে “নামাজের দোয়া ও সুরার অডিও”। এটির সাইজ ১২.২ এমবি।

    এই অ্যাপটির মাধ্যমে নেট কানেকশন ছাড়াইঃ

    ১. নামাজের নিয়ম ও সকল দোয়ার (জায়নামাজের দোয়া, তাকবিরে তাহরিমা, সানা, রুকু ও সিজদার তাসবিহ, তাসমী, তাহমিদ, তাশাহুদ, দরুদ, দোয়া মাসুরা, দোয়া কুনুৎ) উচ্চারণ শোনা ও বাংলা অর্থ দেখা যাবে।

    ২. নামাজের ছোট ছোট কয়েকটি সুরার (সুরা ফাতিহা, আসর, ফীল, কুরাইশ, মাউন, কাউসার, কাফিরুন, নাসর, লাহাব, ইখলাস, ফালাক, নাস) বাংলা উচ্চারণ, অর্থ ও তেলোয়াত শোনা যাবে।

    ৩. দৈনন্দিন প্রয়োজনীয় দোয়া (মসজিদে প্রবেশের ও বের হবার দোয়া, খাবার শুরুর দোয়া, টয়লেটে প্রবেশের দোয়া ইত্যাদি) ও কলেমার (তাইয়্যেবা, শাহাদাৎ, তাওহীদ, তামযীদ, ঈমানে মুজমাল, ঈমানে মুফাস্সাল) বাংলা উচ্চারণ, অর্থ ও অডিও শোনা যাবে।

    ৪. নামাজের গুরুত্ব সম্পর্কে পবিত্র কুরআন ও সহিহ হাদিসের রেফারেন্সগুলো জানা যাবে।

    ৫. সমগ্র মানবজাতির প্রতি আল্লাহর সতর্কবার্তা জানা যাবে।

    ৬. অ্যাপ-নির্মাতার অন্যান্য কম্পিউটার সফটওয়ার সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যাবে।

    এই অ্যাপটি ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবাই ব্যবহার করতে পারেন। অ্যাপটি নিজে ব্যবহার করুন, অন্যকে ব্যবহার করতে উৎসাহিত করুন, প্রয়োজনে শেয়ার করুন।

    অ্যাপটি নিম্নের যে কোন লিঙ্ক থেকে ডাউনলোড করা যাবে:

    http://hikmasoft.net/download/salat_sura_audio.apk

    http://mokhlesbd.com/download/salat_sura_audio.apk

    http://boischool.com/download/salat_sura_audio.apk

    https://bdmarket.net/download/salat_sura_audio.apk

    Monday, May 15, 2017

    Business management software

    Business management software না‌মে নতুন এক‌টি সফটওয়ার নির্মা‌নের কাজ প্রায় শেষ পর্যা‌য়‌ে।
    সফটওয়ার‌টি‌তে সকল ক্রেতা ও কোম্পানীর তথ্য সংরক্ষণ ও সার্স করা যা‌বে, সকল ক্রয় ও বিক্র‌য়ের তথ্য সংরক্ষণ ও সার্স করা যা‌বে, ভাউচার বা মে‌মো প্রিন্ট করা যা‌বে, রেওয়া‌মিল থে‌কে লাভ ক্ষ‌তি ও অা‌র্থিক বিবরণী তৈরী করা যা‌বে, যে কোন পন্য তা‌লিকাভূক্ত করা যা‌বে, স্টক ম্যা‌নেজ‌মেন্ট সি‌স্টে‌মের মাধ্য‌মে স্ট‌কের অবস্থা জানা যা‌বে, যে কোন প‌ন্যের নীট ক্রয়মূল্য নির্ধারণ ক‌রে নি‌র্দিষ্ট লা‌ভে বিক্রয়মূল্য নির্ধারণ করা যা‌বে, বি‌ভিন্ন রি‌পোর্ট প্রিন্ট করা যা‌বে।
    সফটওয়ার‌টিতে অারও নতুন ফিচার যুক্ত করার জন্য প্রকৃত ব্যবসায়ী‌দের নিকট থে‌কে পরামর্শ অাহবান করা হ‌চ্ছে।
    উত্তম পরামর্শ দাতা‌দের মধ্য থে‌কে বাছাই ক‌রে ১০ জন‌কে ফ্রি সফটওয়ার দেয়া হ‌বে।